Agaminews
Dr. Neem Hakim
Dr. Neem Hakim

বিটিভি’র কাছে চিরঋণী নব্বইয়ের প্রজন্ম


Bangla 24 প্রকাশের সময় : ডিসেম্বর ২৪, ২০২০, ৮:৫৪ অপরাহ্ন / ৯৯৭০
বিটিভি’র কাছে চিরঋণী নব্বইয়ের প্রজন্ম
74 Views

চায়ের আড্ডায় ঝড় ওঠে নানান বিষয়েই। বিশেষ করে নব্বই দশকের অনেক গল্প এখনো প্রজন্ম প্রতিনিধিদের নস্টালজিক করে তোলে। এটা আসলে কোনো প্রজন্ম যুদ্ধ নয়। এটা শব্দ আর বাক্যের আদলে নিজের ফেলে আসা দিনের ছবি আঁকা!

নব্বই দশকের পুরো প্রজন্ম বাংলাদেশ টেলিভিশন (বিটিভি) এর ঋণী। এ প্রজন্মের জন্য বিনোদনের সবচেয়ে নস্টালজিক দিনের নাম শুক্রবার! আর এর নেপথ্যে বিটিভি! নামাজে যাওয়ার আগে বিটিভি’র প্রথম অধিবেশন বন্ধের সময় বিকেলের অনুষ্ঠানসূচীতে সিনেমা এবং নায়ক-নায়িকার নাম শোনার চেষ্টা। পছন্দের নায়ক হলে পুরোটা সময়ের উত্তেজনা আর বিকেল তিনটার সেই অধির অপেক্ষা।

শুধু কি তাই? আলি বাবার পেছনে চল্লিশ চোর—টানটান উত্তেজনা! সিনবাদ জাহাজ নিয়ে অজানা এক গন্তব্যের দিকে ছুটবে আজ! মতি মিয়ার আজ বিচার হবে; বড় চাচা, বাবা, তিতলি ভাইয়া, কঙ্কা ভাইয়া সবাই বাড়ির উঠোনে! আজ বাকের ভাইয়ের ফাঁসির প্রতিবাদে ঢাকায় নাকি মিছিল বেরুবে!

শীতের ঈদে গায়ে চাদর, গলায় মাফলার আর সোয়েটার জড়িয়ে পরিবারের সবাই ইত্যাদি দেখতে বসেছে; চোখের পাতা নড়ছে না কারো। বিটিভির আনন্দমেলা দেখার জন্য উত্তেজনা বিরাজ করতো। কিংবা বুদ্ধিমান ম্যাকগাইভার না জানি আজ কি করবে!

এক সময় টিভির কোনো রিমোট ছিল না, কিংবা এতো চ্যানেল! রিমোট থেকেও লাভ হতো না, কারন চ্যানেল ছিল একটি। মাঝে মধ্যে ভারতের দূরদর্শন হয়তো দেখা যেত। পরিবারের সবাই এই একটি চ্যানেল দেখার জন্য মুখিয়ে থাকতো। চ্যানেলটির নাম ‘বাংলাদেশ টেলিভিশন’!

বহুব্রীহি, কোথাও কেউ নেই, আজ রবিবারসহ অসংখ্য কালজয়ী নাটক বিটিভিতে প্রচার হতো। ছবি: সংগৃহীত

বহুব্রীহি, কোথাও কেউ নেই, আজ রবিবারসহ অসংখ্য কালজয়ী নাটক বিটিভিতে প্রচার হতো। ছবি: সংগৃহীত

বহুব্রীহি, অয়োময়, কোথাও কেউ নেই, আজ রবিবার কিংবা রূপনগর, ইতিকথা’র মত অসংখ্য কালজয়ী নাটক এক সময় এই চ্যানেলে প্রচার হতো। আলিফ লায়লা, ম্যাকগাইভার, মিস্ট্রিয়াস আইল্যান্ড এর মত অনুষ্ঠান এক সময় দেখা যেত বিটিভিতে!

অনেকেরই শৈশব আর কৈশোর কেটেছে এই চ্যানেলটি দেখতে দেখতে। সময় বদলেছে এবং নদীর জল ও গড়িয়েছে অনেক।হয়েছে অসংখ্য চ্যানেল- রিমোটের ও বিশ্রাম নেই। কিন্তু পুরনো সেই রোমাঞ্চ কি এখনো আছে?

শেষ কথা হচ্ছে, ৫৬ বছরে পা রাখছে বাংলাদেশ টেলিভিশন। ১৯৬৪ সালের ২৫ ডিসেম্বর তৎকালীন ঢাকা শহরের ডিআইটি ভবনের নিচতলায় এনইসি (নিপ্পন ইলেকট্রিক কোম্পানি) জাপানের সহায়তায় বাংলাদেশ টেলিভিশন বা বিটিভির যাত্রা। তখন নাম ছিল পাকিস্তান টেলিভিশন। ১৯৬৭ সালে টেলিভিশন করপোরেশন ও স্বাধীনতা-উত্তর ১৯৭২ সালে রাষ্ট্রপতির আদেশে সরকারি গণমাধ্যমে রূপান্তরিত হয় বিটিভি।