বৃহস্পতিবার, ২৪ জুন ২০২১, ০৩:২১ অপরাহ্ন

পার্বতীপুরে প্রেমিকের নির্যাতনে প্রেমিকা হাসপাতালে

পার্বতীপুর (দিনাজপুর) প্রতিনিধি / ৪৪ জন পড়েছে:
প্রকাশ: মঙ্গলবার, ১৮ মে, ২০২১, ৯:৩৪ অপরাহ্ন

46 Views

দিনাজপুরের পার্বতীপুরে এক তরুণী (২০) কে ঘর বাঁধার স্বপ্ন দেখিয়ে প্রায় দেড় বছর ধরে শারীরিক সম্পর্ক চালিয়ে যাচ্ছিলো ইমরান ইমন (২২) নামে এক যুবক।

প্রতারিত হওয়ার শংকায় আজ মঙ্গলবার বিকেল ৩টার দিকে দ্রæত বিয়ে করে ঘরে তোলার জন্য চাপ দিতে ইমনের বাড়িতে যায় ওই তরুণী। কিন্তু ঘটলো উল্টো ঘটনা। বিয়ের প্রস্তাবে ক্ষুব্ধ হয়ে ইমন ও তার বাবা আবু তালেব (৫০) মিলে তাকে বেদম পেটায়।

মারপিট ও নির্যাতনে রক্তাক্ত ওই তরুনীকে পরে বাবা ছেলে মিলে চ্যাংদোলা করে পার্বতীপুর উপজেলা পরিষদের উত্তর গেটে ফেলে রেখে পালিয়ে যায়। এসময় স্থানীয় পশ্চিম হুগলীপাড়া গ্রামের গৃহবধু রেহানা বেগম তাকে অজ্ঞান অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখে স্থানীয় রামপুর ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য শফিকুল ইসলাম শাফিকে খবর দেন। পরে তারা চিকিৎসার জন্য তাকে পার্বতীপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে হাসপতালে নিয়ে যান।

স্থানীয়রা জানায়, পার্বতীপুর পৌর শহরের রোস্তমনগর মহল্লার বাসিন্দা ওই তরুনী পার্বতীপুর মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্সের একটি দোকানে বিক্রয়কর্মী হিসেবে চাকুরী করছিলেন। তার সাথে বছরখানেক আগে উপজেলার রামপুর ইউনিয়নের পূর্ব হুগলীপাড়া গ্রামের বেকার যুবক ইমনের সাথে তার প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। সেই থেকে তার প্রতিমাসের বেতনের টাকা সেই পুরোটা গ্রহণ করতো। বলতো শিঘ্রই তাকে ঘরে তুলবে। আর এ দাবি জানাতে গিয়ে শারীরিক নির্যাতনের শিকার হয়ে হাসপাতালে ঠাঁই নিতে হলো তাকে।

হাসপাতলে চিকিৎসাধীন ওই তরুনী সাংবাদিকদের জানান, ইমন শুধু তার প্রতিমাসের বেতনের টাকাই নেয়নি, বিয়ের করার প্রতিশ্রæতি দিয়ে শারীরিক সম্পর্কও গড়ে তোলে। নির্যাতিতা তরুণী হতদরিদ্র দিনমজুর পরিবারের সদস্য হওয়া অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে আইনের আশ্রয় নিতে সাহস পাচ্ছেনা বলে তার পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে।

অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে পার্বতীপুর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মোখলেছুর রহমান জানান।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও সংবাদ........
এক ক্লিকে বিভাগের খবর